তজুমদ্দিনে পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স ইনচার্জের বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক 

0
571

রফিক সাদী

ভোলার তজুমদ্দিনে পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের অফিস ইনচার্জ যোবায়ের হোসেন জাবেদের বিরুদ্ধে নারী কর্মির সাথে পরকিয়া প্রেম করে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি জানাজানি হলে ওই ইনচার্জ বিয়ে করতে অস্বীকার করায় আত্নহত্যার হুমকি দিচ্ছেন প্রতারণার শিকার ওই নারী কর্মি। এদিকে ব্যাভিচারের বিচার দাবী করছেন ওই নারীর স্বামী। এ নিয়ে বীমা গ্রাহকদের মাঝে উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে।
প্রতারণার শিকার নারী কর্মি জানান, পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেড (একক বীমা প্রকল্প) তজুমদ্দিন অফিসের ইনচার্জ যোবায়ের হোসেন জাবেদ তাকে বিভিন্ন সময় কুপ্রস্তাব দেন, তাতে রাজি না হওয়ায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে গত ৮ অক্টোবর ঢাকায় বীমার মিটিংয়ের যাওয়া আসার সময় কর্ণফুলি লঞ্চের কেবিনে কৌশলে তার সাথে শারীরিক মেলামেশা করেন। পুনরায় নভেম্বর মাসের প্রথম দিকে চরফ্যাশনে হোটেন হ্যাভেনে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ৩ রাত যাপন করে মেলামেশা করেন। এর ধারাবাহিকতায় ৮ নভেম্বর পুনরায় জাবেদ তাকে ঢাকায় নিয়ে যান এবং কেবিনে তার সাথে শারীরিক মেলামেশা করেন বলে জানান ভোক্তভোগী এক সন্তানের জননী ওই নারী। পরে অফিস ইনচার্জ জাবেদের নারী কর্মির সাথে পরকিয়া ও শারীরিক সম্পর্কের বিষয়টি জানাজানি হলে তিনি বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান এবং একই বীমা অফিসের ওই নারী কর্মিকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিতে থাকেন। এবিষয়ে অভিযুক্ত অফিস ইনচার্জ যোবায়ের হোসেন জাবেদের কাছে জানতে চাইলে তিনি হোটেলে ও লঞ্চের কেবিনে একত্রে রাত্রি যাপনের বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে দুস্টামির ছলে বিয়ে করার কথা বলেছিলেন বলে জানান। পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড এর ভোলা এডিশনাল পিডি ইনচার্জ শামীম ওসমান এর কাছে জানতে চাইলে বলেন, কোন বীমা কর্মি অপরাধে জড়িত হলে তার দায়ভার তাকেই বহন করতে হবে। বরিশাল বিভাগীয় কর্মকর্তা শাহ আলম এর কাছে জানতে চাইলে বলেন, তজুমদ্দিন অফিসের নারী ঘটিত বিষয়টি শুনেছি, আমরা কর্মকর্তাদের নিয়ে বসে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহন করবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here