দৌলতখানে মা-মেয়েকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ। হাসপাতালে ভর্তি

0
3

দ্বীপকন্ঠ নিউজ ডেস্কঃ

ভোলার দৌলতখানে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে রেনু (৩৮) নামের এক মহিলা ও তার স্কুল পড়ুয়া মেয়ে জান্নাতুল মাওয়াকে (১৫) মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার উপজেলার উত্তর জয়নগর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যজয়নগর গ্রামের গফুর হাওলাদার বাড়িতে। বর্তমানে আহত রেনু ও তার মেয়ে জান্নাতুল মাওয়া ভোলা সদর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনা ভুক্তভোগী রেনুর বড় মেয়ে নাদিয়া ইসলাম শিল্পী বাদী হয়ে দৌলতখান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

শনিবার বিকালে ভোলা সদর জেনারেল হাসপাতালে নাদিয়া ইসলাম শিল্পী জানান, আবুল কালাম ও তার ছেলে শাহাবুউদ্দিনের সাথে দীর্ঘদিন ধরে আমাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। ঘটনার দিন শুক্রবার সকালে বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা গ্রাম্যভাবে সালিশ বৈঠকে বসেন। সালিশ বৈঠকের বিরতির সময় উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এসময় আমার ছোট বোন জান্নাতুল মাওয়া বিরোধপূর্ণ জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বাড়ি থেকে আনতে গেলে পথিমধ্যে আবুল কালাম ও তার ছেলে শাহাবুউদ্দিন তাকে মেধড়ক মারধর করে। মারধরের বিষয়টি টের পেয়ে আমার মা রেনু বেগম এগিয়ে আসলে তাকেও মারধর করে। এতে করে আমার মা ও বোন গুরুত্বর আহত হয়। বর্তমানে তারা ভোলা সদর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

অন্যদিকে অভিযুক্ত আবুল কালাম জানান, আমরা তাদের কোন মারধর করেনি। উল্টো সালিশ বৈঠকের একপর্যায়ে নাদিয়া ইসলাম শিল্পী,চাঁন মিয়া সহ চার থেকে পাঁচ জন মিলে আমাদের মারধর করে। এত করে আমার স্ত্রী মনোয়ারা, মেয়ে রাজুফা,ছেলে শাহাবুউদ্দিন ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আহত হয়। বর্তমানে তারা দৌলতখান হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

দৌলতখান থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বজলার রহমান জানান, এঘটনায় নাদিয়া ইসলাম শিল্পী বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here