ভিয়েনা সিটি নির্বাচনে নমিনেশন পেয়েছেন ভোলার সন্তান মাহমুদুর রহমান নয়ন

0
131

রিপন শান

পৃথিবীর সেরা বিশুদ্ধ ও বাসযোগ্য আধুনিক শহর অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা । আগামী ১১ অক্টোবর ২০২০ অনুষ্ঠিত হবে ভিয়েনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। এই নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন পেয়েছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুণ রাজনীতিবিদ সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদুর রহমান নয়ন। তিনি ক্ষমতাসীন দল অষ্ট্রিয়ান পিপলস পার্টি থেকে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। ক্ষমতাসীন দলটির সেন্ট্রাল মনোনয়ন বোর্ড মাহমুদুর রহমান নয়নকে ভিয়েনার ১৩, ১৪ এবং ২৩ নম্বর ডিসট্রিক্টের নির্বাচনী এলাকা থেকে চূড়ান্ত মনোনয়ন প্রদান করেন। তরুণ এ রাজনীতিবিদ ভোলার লালমোহনের সন্তান মাহমুদুর রহমান নয়ন মনোনয়ন পাওয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির মধ্যে আনন্দের বন্যা বইছে।
অষ্ট্রিয়ার নিয়মানুযায়ী পার্টিকে ভোট দেবেন এখানকার নাগরিকরা। মাহমুদুর রহমান নয়নের প্রার্থিতার কথা নিশ্চিত করেছেন নয়নের গর্বিত পিতা অষ্ট্রিয়ার সিনিয়র সাংবাদিক,অষ্ট্রিয়া বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি, বাংলাদেশ অস্ট্রিয়া সিনিয়র ক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি, অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা , লালমোহন মিডিয়া ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা, শান ফাউন্ডেশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক এবং ভিয়েনা থেকে প্রকাশিত অনলাইন দৈনিক ইউরো সমাচার সম্পাদক মাহবুবুর রহমান। তিনি বলেন, অষ্ট্রিয়ার সিটি নির্বাচনে এর আগে কোনো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নাগরিক প্রার্থী হওয়ার সুযোগ পাননি। পিপলস পার্টি তার জনপ্রিয়তা অনুযায়ী ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলে নয়নই হবেন প্রথম বাংলাদেশী কাউন্সিলর।
মাহমুদুর রহমান নয়নের জন্ম ১৯৯৫ সালে ভিয়েনায়। তিনি অষ্ট্রিয়ার নাম করা একটি উচ্চতর টেকনিক্যাল কলেজ থেকে অষ্ট্রিয়ার গ্রেড অনুযায়ী এক্সেলেন্স রেজাল্ট করেন। এই কলেজে থাকাকালীন অবস্থায় তিনি অষ্ট্রিয়ার কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের স্পিকার ছিলেন। এরপর যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অফ সেন্ট্রাল ল্যাঙ্কাশায়ার  থেকে সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বিএসসি অনার্স ফার্স্ট ক্লাস এবং একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএসসিতে ফার্স্ট ক্লাস পেয়ে উত্তীর্ণ হন। এরপর সিনিয়র কনসালটেন্ট হিসেবে চাকুরিতে যোগ দেন জার্মানের একটি নাম করা আইটি কোম্পানিতে।
প্রবাসে থাকা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বাংলাদেশী বেড়ে ওঠা তরুনদের নিয়ে মাহমুদুর রহমান নয়ন বলেন, প্রবাসে বেড়ে ওঠা বাংলাদেশী তরুণরা নিজেদের কমিউনিটিতে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি স্থানীয় রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়া জরুরী। বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে তার মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশের গতানুগতিক রাজনীতির আমুল পরিবর্তন আনতে হবে। বড় বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় পদগুলিতে তরুণদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। নুতন ব্যবসা এবং চাকুরীর ক্ষেত্রসমূহ দুর্নীতি মুক্ত করতে হবে। এছাড়া পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে, তবেই বাংলাদেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।
তিন বোন এক ভাইয়ের মধ্যে নয়ন সবার ছোট। তার বাবা ১৯৮৪ সালে অষ্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনা আসেন। বাবা মায়ের উৎসাহ ও অনুপ্রেরণায় তিনি আজ এ পর্যন্ত এসেছেন। একজন সিনিয়র সাংবাদিক ও বীরমুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে নয়ন গর্বিত । নয়ন জানান, ভিয়েনা সিটির নির্বাচনে যদি তার পার্টি ক্ষমতায় আসে তবে তিনি অবশ্যই তিনি কাউন্সিলর হবেন। তিনি দেশ ও বিদেশের সকল বাংলাদেশীর কাছে তার জন্য দোয়া চেয়েছেন।
SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here