ভোলায় ভাঙা হাত কাঁধে ঝুলিয়ে ন্যায় বিচারের দাবিতে কোর্টের বারান্দায় শিশু তায়েবা

0
78

আকতারুল ইসলাম আকাশ, ভোলা 

প্রতিপক্ষের হামলায় হাত ভেঙে গেলে ভাঙা হাত কাঁধে ঝুলিয়ে ন্যায় বিচারের দাবিতে ভোলা কোর্টে এসেছেন ৮ বছরের শিশু কন্যা তায়েবা। ১৬ ডিসেম্বর বিকালে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিপক্ষরা এ হামলা চালায় শিশু তায়েবা ও তার পরিবারের উপর। ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের উত্তর বাপ্তা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
ঘটনায় শিশু তায়েবার মা রুমা বেগম ১৮ ডিসেম্বর বাদী হয়ে ভোলা সদর মডেল থানায় মামলার প্রধান আসামি হাসনাহেনা রুবিসহ উল্লেখিত ৬ জন ও অজ্ঞাত ৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর-৪২/২০।
পুলিশ মামলার প্রধান আসামি হাসনাহেনা রুবিকে ১৯ ডিসেম্বর বিকালে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন। রুবি ওই গ্রামের ইরাক প্রবাসী আজাদের স্ত্রী।
মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন, ২। ওই গ্রামের মৃত আবু ছালেহের ছেলে মাইনুদ্দিন (৪২), মৃত ইউছুফের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৫৫), মৃত আবু ছালেহের ছেলে ওমর ফারুক (৫৬), মৃত শাহে আলমের ছেলে মোশারেফ হোসেন (৩৮) ও মাইনুদ্দিনের স্ত্রী জোসনা (৩৬) বেগম।
মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, ১৬ ডিসেম্বর বিকালে শিশু তায়েবা তাদের নিজ উঠানে খেলাধুলা করছিল। এসময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রুবি তাকে কিল ঘুষি দিয়ে মাটিতে ফেলে তাঁর ডান হাত মুচড়ে ভেঙে পেলে। শিশু তায়েবার মা ডাক চিৎকার শুনে তায়েবাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে ২ ও ৩ নম্বর আসামি তায়েবার মায়ের পরিহিত কাপড় চোপড় টানা হেচড়া করে তাকে শ্লীলতাহানি করে। এসময় ৪ নম্বর আসামি বাদীর গলার স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। একপর্যায়ে ৫ ও ৬ নম্বর আসামি বাদীর বসত ঘরে ঢুকে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার ছিনিয়ে নেয়।
এদিকে আহত তায়েবা ভোলা সদর হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে সোমবার সকালে ভোলা কোর্টে এসেছেন। আদালত রুবির জামিন নামঞ্জুর করে তা ২৭ ডিসেম্বর শুনানির দিন ধার্য্য করেন। আর অন্যান্য আসামিরা কোর্টে হাজির হলে আদালত তাদেরকে আগাম জামিনের রায় দেয়।
SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here