লালমোহনে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধে বসত ঘরে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ

0
14

দ্বীপকন্ঠ নিউজ ডেস্কঃ

ভোলার লালমোহন উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নে (গজারিয়া) জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বসত ঘরে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ পাওয়া গেছে।  ১৭ ডিসেম্বর দিবাগত রাতে পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড জসিম উদ্দিনের বসত ঘরে এ ঘটনা ঘটে  এঘটনায় গুরুতর আহত জসিমের মা গোলাপজান বেগমকে পাশ্ববর্তী চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
জসিম উদ্দিন ও বজলু জানায়, প্রায় ৩০ বছর পুর্বে একই এলাকার আলী হোসেন পাটোয়ারীর কাছ থেকে প্রায় ১ একর ৪শতাংশ জমি কিনেন। দলিল রেজিষ্ট্রি না হতেই আলী হোসেন পাটোয়ারী মারা যায়। বাবার মৃত্যুর পর তার দুই ছেলে ফারুক ও মিজান ৬০ শতাংশ জমি জসিম ও বজলুকে দলিল রেজিষ্ট্রি করে দেন। আলী হোসেন পাটোয়ারীর আরেক ছেলে নুর ইসলাম জমি দলিল না দিয়ে তাল বাহানা করেন। জসিম অভিযোগ করেন, ইতিমধ্যে কয়েকবার সালিশ হলেও নুর ইসলাম তা মানছে না। জোরপূর্বক জমি দখল করার চেষ্টা করে নুর ইসলাম। ঘটনারদিন রাতে ওই ঘরে জসিমের মা গোলাপজান বেগম, তার বোন আনোয়ারা বেগম ও জসিমের মেয়ে সানজিদা বেগম ঘুমাচ্ছিল। রাত ১টারদিকে হঠাৎ আগুন দেখে ডাকচিৎকার শুনে স্থানীয়রা এসে আগুন নিভাতে সক্ষম হয়। এতে জসিমের ঘরের আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনে পুড়ে যায় জসিমের মায়ের মুখ ও চুল। পরে তাকে চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
স্থানীয়রা জানায়, প্রায় ৩০ বছর পুর্বে আলী হোসেন পাটোয়ারির কাছ থেকে জমি কিনারপর থেকে ১একর ৪শতাংশ জমি ভোগ দখল করে আসছেন জসিম ও বজলু। এখন নুর ইসলাম তার জমি দাবি করে জোরপূর্বক দখল করার চেষ্টা করছে। এব্যাপারে নুর ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বিকার করে বলেন, আমি ২৪ বছর বিদেশ ছিলাম। আমার বাবার কাছ থেকে যদি জসিম উদ্দিন গংরা জমি কিনে থাকেন এমন প্রমাণ দিতে পারলে আমি তা পুরণ করবো। তবে আমার জানা মতে আমার বাবা জসিম গংদের কাছ থেকে ২৫হাজার টাকা নিয়েছেন। আমি সেই টাকা ফেরৎ দিবো।
SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here