বিয়ের দাবিতে অনশন করা মৌ এখন কারাগারে

0
61

মোঃ সানাউল্লাহ, বরগুনা

জামালপুর থেকে বিয়ের দাবিতে বরগুনার বেতাগীতে এসে অনশনে বসা সেই তরুণীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে শুক্রবার (১৩ মে) সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ আলম হাওলাদার। তিনি বলেন, জামালপুর থেকে আসা তরুণীর বিরুদ্ধে মাহমুদুলের বাবা আদালতে একটি ভাংচুর, জনদুর্ভোগ সৃষ্টি, অনুপ্রবেশকারী ও হত্যা চেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলাটি আমলে নিয়ে আদালত আমাকে আইনি ব্যবস্থার নির্দেশ দিয়েছেন। তাই আজ সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানোর হয়েছে।
ওসির দেওয়া তথ্যমতে— বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের বিচারক মো. নাহিদ হোসেনের আদালতে নতুন করে আরও একটি মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী পরিবার। মামলাটি আমলে নিয়ে বিচারক ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নিতে বেতাগী থানার ওসিকে আদেশ দেন।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ২৯ এপ্রিল বেতাগী উপজেলার চান্দখালীতে মাহমুদুল হাসান নামে এক যুবকের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান নেন মৌ। ওই তরুণীর আসার খবর পেয়ে ঘটনার দিনই ঘরের দরজায় তালা লাগিয়ে পালিয়ে যান মাহমুদুলের পরিবার। পরে ওই তরুণী দরজার সামনে অবস্থান নেন। এনিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রচার হয়। একপর্যায়ে ওই তরুণী বিয়ের জন্য মাহমুদুল হাসানকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আত্মহত্যার হুমকি দেন। এর দুদিন পর স্থানীয়দের সহায়তায় তালা ভেঙে ঘরের ভেতরে অবস্থান করেন ওই তরুণী। পরে ছেলের মামা ঘটনাস্থানে এলে তাকেও আটকিয়ে রাখা হয়।
কে এই মৌ
ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন গণমাধ্যম একের পর এক সাক্ষাৎকার নিতে থাকে মৌয়ের। নিত্যনতুন আপডেটসহ একপর্যায়ে ওই তরুণীর আসল পরিচয় বের হতে থাকে। জানা যায়— মৌ নয়, ওই তরুণীর আসল নাম শিখা আক্তার। তার বাড়ি জামালপুরে হলেও একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকরির সুবাদে ঢাকায় থাকেন তিনি। এর আগে অন্য একজনের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তার। সেই সংসারে একটি মেয়ে সন্তানও রয়েছে।
তার বিরুদ্ধে অভিযোগ— ‘মৌ‘ ছদ্ম নাম ব্যবহার করে অনেকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়েছেন। এভাবে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে টাকা হাতানোই তার নেশা। তারই ধারাবাহিকতায় মাহমুদুল হাসানের সঙ্গেও মিথ্যা পরিচয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন তিনি। পরে বিভিন্নভাবে ছবি তুলে তাকে ফাঁসানোর চেষ্টাও করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here