মনপুরায় পুলিশ-মুসুল্লি ঘন্টাব্যাপি সংঘর্ষ, গুলিতে আহত – ১০

0
180

মোঃ ছালাহউদ্দিন,মনপুরা

ভোলার মনপুরায় বৃহস্পতিবার শ্রীরাম নামে এক যুবক মহানবী (সাঃ) ও বিবি আয়শাকে জড়িয়ে কটুক্তিমূলক ফেইসবুকে পোস্ট দেয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার জুম্মার পর রামনেওয়াজ জামে মসজিদের মুসল্লী, কাউয়ারটেক কিল্লার পাড় জামে মসজিদের মুসল্লী ও চৌমুহনী জামে মসজিদের মুসল্লীরা রামনেওয়াজ চৌমুহনী বাজারে মিছিল সহ একত্রে হয়ে প্রতিবাদ করে। এই সময় কিছু উশৃঙ্খল মুসল্লী ওই যুবকের চৌমুহনী বাজারে দোকান ঘরে হামলা শুরু করে।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাঁধা দিলে উত্তেজিত মুসল্লী পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ঘন্টাব্যাপি সংঘর্ষে পুলিশ ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে। এতে পুলিশের ছোঁড়া গুলিতে ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় ফেইসবুকে পোস্ট দেওয়া যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল চন্দ্র দাস , উপজেলা চেয়ারম্যান শেলিনা আকতার চৌধুরী ও ইউপি চেয়ারম্যান আমানত উল্লা আলমগীর ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে চেষ্ঠা করে।

আটককৃত ও মহনবী(সাঃ) কে জড়িয়ে কুটক্তিমূলক ফেইসবুকে পোস্ট যুবক হলেন, উপজেলার রামনেওয়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের প্রাক্তন মেম্বার দুলাল চন্দ্র দাসের ছেলে মৎস্য ব্যবসায়ী শ্রীরাম চন্দ্র দাস।

পুলিশের ছোড়া ছড়া গুলিতে আহতরা হলেন, জহির, সাইফুল, করিম,আল আমিন, রাহাত ও ছোট করিম এর নাম পাওয়া গেছে। এরা সবাই উপজেলার মনপুরা ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের বাসিন্দা।

ঘটনাসূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার শ্রীরাম চন্দ্র দাস বৃহস্পতিবার তার ফেইসবুকে মহানবী (সাঃ) ও বিবি আয়শাকে নিয়ে কুটক্তিমূলক পোস্ট দেয়। পরে শুক্রবার জুম্মার পর রামনেওয়াজ বাজার জামে মসজিদের মুসল্লী, কাউয়ারেটেক কিল্লার পাড় জামে মসজিদের মুসল্লি ও চৌমুহনী বাজার জামে মসজিদের মুসল্লীরা এই ঘটনার প্রতিবাদে মিছিলসহকারে মনপুরার রামনেওয়াজ বাজারে একত্রিত হয়ে প্রতিবাদ করে। খবরপেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই যুবককে আটক সহ উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করার চেষ্ঠা করে। একপর্যায়ে কিছু সংখ্যক উত্তেজিত জনতা শ্রীরামের চৌমুহনী বাজারে ভাড়া দেওয়া দোকান ঘরে হামলা করলে পুলিশ বাঁধা দেয়। পরে পুলিশের সাথে মুসল্লিদের ঘন্টাব্যাপি সংর্ঘষ বাঁধে। এই ঘটনায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করতে পুলিশ ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। পুলিশের গুলিতে ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মনপুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জানান, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে। ফেইসবুকে মহানবী (সাঃ) ও বিবি আয়শাকে জড়িয়ে কুটক্তিমূলক পোস্ট দেয় শ্রীরাম নামে এক যুবক। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজিত জনতা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে হামলা করলে পুলিশ বাঁধা দেয়। তখন উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করার চেষ্ঠার সময় জনতা পুলিশের উপর হামলার চেষ্ঠা করলে পুলিশ ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। ওই যুবককে আটক করা হয়েছে ও মামলার প্রস্তুতির কার্যক্রম চলছে।

মনপুরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপুল চন্দ্র দাস জানান, ফেইসবুকে ঘটনাকে কেন্দ্র করে মনপুরায় অনাকাঙ্খীত ঘটনা ঘটে। জুম্মার নামাজের পর চারিদিক থেকে মিছিল সহকারে এসে মানুষ উত্তেজিত হয়ে প্রতিবাদ করে। তবে কিছু উশৃঙ্খল মানুষ পরিস্থিতি উত্তেজিত করে, তারপর সবাইকে সাথে নিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে। তবে আমার কাছে মনে হয় এই ঘটনা প্লান করে করা হয়নি। ওই যুবককে আটক করা হয়েছে ও মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here