1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৪:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কলাপাড়ায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কৃষক লীগের আলোচনা সভা ও দোয়া ৭১ এর পরাজিত শক্তি দেশকে অস্থিতিশীল করতে বিভিন্ন চক্রান্ত করে যাচ্ছে – এমপি শাওন পটুয়াখালীতে অধ্যক্ষের অপসারণ দাবিতে টায়ার জ্বালিয়ে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ চরফ্যাশনের ছিদ্দিক এখন হাইকোর্টের আইনজীবী পিরোজপুরে গরম ডালে ঝলসে যাওয়া শিশুর মৃত্যু বাউফলে প্রবাসীর উপর আতর্কিত হামলা, কারাগারে ইউপি সদস্য উন্নয়ন ও গণতন্ত্রবিরোধী চক্রের সকল অপতৎপরতা ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলা করতে হবে- এমপি শাওন বাউফল জিও ব্যাগ ফেলে নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্প উদ্ভোধন স্মরণে রিন্টুর বড় বোন এমপি সুলতানা নাদিরা শোক দিবসের এই দিনে  রিন্টুকে মনে পড়ে অভিভাবক ও শিক্ষকদের মধ্যে একটি কার্যকর যোগাযোগ নিশ্চিত করতে হবে-পুলিশ কমিশনার

কলাপাড়ায় রাস্তা কেটে চাষাবাদ বিপাকে স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীসহ সাধারন মানুষ

এস এম আলমগীর হোসেন, কলাপাড়া
  • আপডেট : সোমবার, ২৫ জুলাই, ২০২২
  • ২৮ বার পঠিত

এস এম আলমগীর হোসেন, কলাপাড়া

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় আদালতের নির্দেশকে উপেক্ষা করে মানুষ চলাচলের রাস্তা কেটে চাষাবাদ করায় বিপাকে পড়েছে খাজুরা গ্রামের স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীসহ সাধারণ মানুষ। এলাকার মানুষ রাস্তার অভাবে বাড়ি থেকে বেড় হতে পারছে না। স্কুলে যেতে পারছে না স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীরাও। এ নিয়ে অসহায় মানুষজন বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিদের কাছে ধর্না দিয়েছে। সর্বশেষ আদালতের দ্বারস্থ হলে আদালত রাস্তা কেটে চাষাবাদ না করার জন্য নিদের্শনা দেয়। তাও আমলে নেয়নি ভুলে বিএস জরিপে অন্তর্ভূক্ত জমির দাবিদার সেরাজ তালুকদারসহ তার স্বজনরা।
জানা যায়, কলাপাড়া উপজেলার জে এল ৩৪ নং লতাচাপলী মৌজার হাল ১৫৯৫ নং খতিয়ানের হাল ৪১৩৪/৪১৭৩ নং দাগের এক একর ৫০ শতাংশ জমির ক্রয় সূত্রে মালিক আবুল কাশেম ব্যাপারী। যার দলিল নং ৫০৩৩, তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০০৫। কিন্তু বিএস জরিপে জমির মালিক আবুল কাশেম ব্যাপারীর নামে বি এস ৫৭৮ নং খতিয়ানে মাত্র এক একর চল্লিশ শতাংশ জমি রেকর্ড হয়। বাকি ১০ শতাংশ জমি ভূল বসত পাশর্^বর্তী জমির মালিক সেরাজ তালুকদারের নামে রেকর্ড হয়। এই ভূল বসত জমির রেকর্ড হওয়ায় সেরাজ তালুকদার ওই জমির মালিকানা দাবি করে চাষাবাদ করার উদ্যোগ গ্রহন করে।
অপরদিকে ওই রাস্তাটি ব্যবহার করে খাজুরা গ্রামের স্কুলগামী ছাত্র-ছাত্রীসহ হাজার-হাজার মানুষ। খাজুরা গ্রামের হাজেরা বেগম (৪০) বেগম বলেন, মাটির রাস্তা হলেও এ রাস্তাটি গ্রামবাসী ব্যবহার করছে দীর্ঘ দিন ধরে। খাজুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। রাস্তাটি কেটে ফেলায় আমাদের ছেলে মেয়েদের স্কুলে যেতে পারছে না।
এ ব্যাপারে সেরাজ তালুকদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে সে ফোন রিসিভ করেনি। কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র মো.আনোয়ার হোসেন হাওলাদার বলেন, চলাচলের রাস্তা কেটে চাষাবাদ করার কোনো সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে আমার কাছে কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি দেখবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর
%d bloggers like this: