1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের খসড়া দ্রুত পাস করার দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০২:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লালমোহনে প্রতিপক্ষের হামলায় গর্ভবতী নারীসহ আহত ৩ পাথরঘাটায় “একটু পাশে দাঁড়াই ” সংগঠন এর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ লালমোহনে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার পেল নগদ অর্থ ও ঢেউটিন লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়ন বাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মো: জসিম উদ্দিন হাওলাদার মনপুরায় ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এমপি জ্যাকবের ৩ লক্ষ টাকা অনুদান বিতরন লালমোহনে মনিরুজ্জামান মনিরের ৫ হাজার শাড়ি লুঙ্গি পেল অসহায় পরিবার লালমোহনে বজ্রপাতে নিহতের পরিবারকে কোস্ট ফাউন্ডেশনের অনুদান হতদরিদ্রদের সরকারি টিসিবির মাল মুদিদোকানে চুরি করে বিক্রি লালমোহনে গরীব ও দুঃস্থরা পেল মনিরুজ্জামান মনিরের ঈদ উপহার লালমোহনে অসহায়-দু:স্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ

তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের খসড়া দ্রুত পাস করার দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

জাহিদুল ইসলাম দুলাল, লালমোহন
  • প্রকাশিত : সোমবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২২
  • ১১৩ বার পঠিত
Spread the love

বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী তামাক ব্যবহারের ভয়াবহতা উপলব্ধি করে ২০১৬ সালে দক্ষিণ এশীয় স্পিকার সম্মেলনে ২০৪০ সালের পূর্বেই দেশকে তামাকমুক্ত করার লক্ষ্যে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনকে ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন টোব্যাকো কনট্রোল (এফসিটিসি) এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ করার ঘোষণা দিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনের লক্ষ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রস্তাবিত তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের খসড়া সংশোধনী প্রস্তাব চুড়ান্ত করার দাবিতে গত সোমবার (৩১ অক্টোবর, ২০২২) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন অব দ্য রুরাল পূওর (ডরপ) যুব ফোরাম এবং এন্টি-টোব্যাকো উইং, লক্ষ্মীপুর সাংবাদিক ফোরামের যৌথ উদ্যোগে একটি মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ২০০৫ সালে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন প্রণয়ন করা হয় এবং ২০১৩ সালে আইনে সংশোধনী আনা হয়।

কিন্তু আইনটি যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে দুর্বলতাসমূহকে চিহ্নিত করে সম্প্রতি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় খসড়া সংশোধনী প্রস্তাব প্রস্তুত, ওয়েবসাইটে প্রকাশ এবং জনমত গ্রহণ করেছেন। কিন্তু আমরা লক্ষ্য করেছি তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের এই সংশোধনী খসড়ার বিশাল জনমতকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য তামাক কোম্পানিগুলো ভুয়া জনমত সংগ্রহ করা সহ গণমাধ্যম ব্যবহার করে নানাবিধ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা তথ্য প্রচার করছে। মানববন্ধনে আরও উল্লেখ করা হয়, আমরা সকল তামাক বিরোধী সংগঠন তামাক কোম্পানির এই অনৈতিক কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানাই এবং নীতি-নির্ধারকদের কাছে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের খসড়া সংশোধনী প্রস্তাবনা দ্রুত পাস করার দাবি জানাই।

তামাক নিয়ন্ত্রণের এই খসড়া সংশোধনী প্রস্তাব দ্রুত পাস করার দাবিতে মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী বক্তারা বলেন, বিভিন্ন গবেষণায় দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, প্রতি বছর বাংলাদেশে তামাক ব্যবহারজনিত বিভিন্ন রোগে ১ লাখ ৬১ হাজার এরও বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করে, পঙ্গুত্ববরণ করে প্রায় ৪ লাখ মানুষ এবং তামাক ব্যবহারকারীর অর্ধেকই মারা যায় তামাক সেবনে। গণপরিবহনে ও পাবলিক প্লেসে পরোক্ষ ধূমপানের শিকার হয় প্রায় ৩ কোটি ৮৪ লাখ প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ। এছাড়াও তামাক ব্যবহারজনিত মৃত্যু ও অসুস্থতার কারণে স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশ সরকারের বছরে প্রায় ৩০ হাজার ৫৬০ কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি হয় যা তামাকখাত থেকে অর্জিত রাজস্ব আয় (২২০০০ হাজার কোটি টাকা) থেকে প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা বেশি।

উল্লেখ্য, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের খসড়া সংশোধনীতে যেসব প্রস্তাব অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তারমধ্যে অন্যতম হলো- পাবলিক প্লেস ও পাবলিক পরিবহনে ‘ধূমপানের জন্য নির্ধারিত স্থান’ বিলুপ্ত করা, বিক্রয়স্থলে সকল ধরনের তামাকজাত দ্রব্য প্রদর্শন নিষিদ্ধ করা, তামাক কোম্পানির সামাজিক দায়বদ্ধতা কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ নিষিদ্ধ করা; সব ধরনের খুচরা বা খোলা তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় নিষিদ্ধ করা; ই-সিগারেট, ভ্যাপিং, হিটেড টোব্যাকো প্রোডাক্টসহ এধরনের সকল পণ্য উৎপাদন, আমদানি ক্রয়-বিক্রয় নিষিদ্ধ করা; এবং তামাকজাত দ্রব্যের প্যাকেট বা মোড়কে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবার্তার আকার ৫০ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ৯০ শতাংশ করা ইত্যাদি।

এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন ক্যাম্পেইন ফর টোব্যাকো ফ্রি কিডস (সিটিএফকে) এর গ্র্যান্টস ম্যানেজার আবদুস সালাম মিয়া, সিটিএফকে সিনিয়র পলিসি অ্যাডভাইজার মো. আতাউর রহমান মাসুদ এবং ডরপ এর উপ-নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ যোবায়ের হাসান। এছাড়াও উক্ত মানববন্ধনে প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান), স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশন, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন, উন্নয়ন সমন্বয়, ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির টোব্যাকো কনট্রোল রিসার্চ সেল, ঢাকা ধন আহছানিয়া মিশন, ডব্লিউবিবি ট্রাস্টসহ বিভিন্ন তামাক বিরোধী সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!