1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
লালমোহনে জোরপূর্বক দোকানের ভিটা দখলের পায়তারা - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩৯ পূর্বাহ্ন

লালমোহনে জোরপূর্বক দোকানের ভিটা দখলের পায়তারা

মোঃ নুরুল আমিন, লালমোহন
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৩৪ বার পঠিত

মোঃ নুরুল আমিন, লালমোহন

লালমোহনে একটি প্রভাবশালী চক্র জোরপূর্বক এক নিরীহ ব্যক্তির দোকান ভিটা দখলের পায়তারা দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার ধলী গৌর নগর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের উত্তর চর মোল্লাজি গ্রামে কাজি বাজার রোডের পশ্চিম মাথায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, চর মোল্লাজি গ্রামের বাসিন্দা ইয়াসিন মাওলানা ব্যবসা করার জন্য তাদের বাড়ির ওষুধের দোকানদার তথা পল্লি চিকিৎসক আবুল কালামের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা দিয়ে ২০০৪ সালের দিকে কাজি বাজার রোডের পশ্চিম মাথায় একটি দোকানঘর করার মতো জায়গা কিনেন। আবুল কালাম তাকে জায়গার দখল বুঝিয়ে দিয়েছেন কিন্তু কোনো লিখিত কাগজ বা স্টাম্প দেননি। তখন লিখিত ডকুমেন্ট চাইলে এটি খাস খতিয়ানভুক্ত জমি বলে তিনি লিখিত দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। দখল বুঝে নিয়ে সেখানে দোকানঘর তুলে ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করতে থাকেন মাওলানা ইয়াসিন। ২০১৬ সালে ধলী গৌর নগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন চলাকালে আবুল কালাম পারিবারিক ও বাড়ির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শত্রুতার জের ধরে কৌশলে লোক লাগিয়ে দোকানঘরটি ভেঙে ফেলে এবং এটি তার জায়গা দাবি করে দখল করার চেষ্টা করে। আবুল কালাম, শামীম, ইউসুফ ও মোঃ জিয়াসহ একটি সংঘবদ্ধ চক্র ষড়যন্ত্র করে দোকান ঘর দখলের পায়তারা দিতে থাকে। পরে স্থানীয় কিছু ব্যক্তির হস্তক্ষেপে দখল করতে পারেননি।

তখন ইয়াসিন মাওলানা ধলী গৌর নগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হেদায়েতুল ইসলাম মিন্টু মিয়ার শরণাপন্ন হলে তিনি সরেজমিনে আসেন এবং স্থানীয় বিভিন্ন লোক থেকে জানতে পারেন এ জায়গাটি ইয়াসিন মাওলানার দখলে, এটি তার দোকান এবং এটি তিনি আবুল কালাম থেকে কিনেছেন। আবুল কালাম তখন এখানে দলীয় ক্লাব ও অফিস করবে বলে জানালে চেয়ারম্যান তাকে ওখানেই পাশে একটি ঘর করে দেন দলীয় ক্লাব ও অফিস করার জন্য। সেখানে বসে আবুল কালাম দোকান করতেছেন। প্রভাব বিস্তার করে ইয়াসিন মাওলানাকে তার ঘরে উঠতে দিচ্ছেন না। স্থানীয় লোকজন জানান, আবুল কালাম দলীয় ক্লাব করবে দাবি করে জায়গা দখল করে পরে সেই জায়গা অন্যদের কাছে বিক্রি করে দেন। এভাবে এখানে ১০/১১টি ঘর তিনি দখল করে বিক্রি করে দিয়েছেন। এটা মুলত পশ্চিম চর উমেদ মৌজার খাস খতিয়ানের জমি। বিভিন্ন হুমকি ধামকি ভয়ভীতি দেখিয়ে ইয়াসিন মাওলানা ও তার পরিবারকে হয়রানি করছে আবুল কালামসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা।

ভুক্তভোগী ইয়াসিন মাওলানা ও তার পরিবার ন্যায় বিচার দাবি করেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান হেদায়েতুল ইসলাম মিন্টু মিয়া বলেন, এতদিন আগের কথা আমার এখন স্পষ্ট মনে নেই। আমরা তো সবসময়ই বিভিন্ন বিচার সালিশি নিয়ে ব্যস্ত থাকি। আমার কাছে এলে জেনে শুনে ফয়সালা করার চেষ্টা করবো।
ধলী গৌর নগর ৬নং ওয়ার্ডের মেম্বার জাকির জানান, এই ঘরে দীর্ঘদিন ধরে ইয়াসিন মাওলানাকে ব্যবসা করতে দেখেছি। তিনি এখানে দোকান ঘর তুলেছেন। দখল সূত্রে তিনি মালিক ও ভোগদখলকার। এগুলো সরকারি জমি তবে কালাম ডাক্তারের দখলে ছিলো। সে দখল অনুযায়ী একাধিক ভিটা বিক্রি করেন, সর্বশেষ নিজের ব্যবসা করার ভিটা টুকু বিক্রি করছেন।এখন সে আওয়ামীলীগের ক্লাবকে দোকান বানিয়েছেন।তবে সে মাওলানা ইয়াসিনের সাথে যা করতেছেন এটি অন্যায়।

Please Share This Post in Your Social Media

এ জাতীয় আরও খবর