1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
লালমোহনে কৃষকলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করলেন জনৈক পুলিশ সদস্য - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৪:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কাঠালিয়ায় সাপের কামড়ে নারীর মৃত্যু বাউফলে ছাগল চোর আটক, এলাকাবাসীর গনধোলাই ‘লঞ্চে সন্তান প্রসব, মা-শিশুর আজীবন ভাড়া ফ্রি’ ভোলা জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ মাহবুব-উল-আলম- শ্রেষ্ঠ থানা লালমোহন লালমোহনে অটোরিকশার চাকায় পৃষ্ট হয়ে ৫ বছরের শিশু নিহত মনপুরায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত মনপুরায় ঘূর্ণীঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এমপি জ্যাকবের নগদ অর্থ বিতরন বাউফল উপজেলা প্রসাশনের আয়োজনে উপজেলা চেয়ারম্যানদের বরন অনুষ্ঠান বোরহানউদ্দিনে ভিক্ষুককে পিটিয়ে জখম, হামলাকারী যুবক আটক কলাপাড়ায় ক্ষতিগ্রস্থ্য ৩৬০০ পরিবার পেলো জাপানের খাদ্য সহায়তা

লালমোহনে কৃষকলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করলেন জনৈক পুলিশ সদস্য

দ্বীপকন্ঠ নিউজ ডেস্ক:
  • প্রকাশিত : রবিবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ১১২ বার পঠিত
Spread the love

দ্বীপকন্ঠ নিউজ ডেস্কঃ

ভোলার লালমোহনে কৃষকলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যা মারপিটের অভিযোগ করলেন জনৈক পুলিশ সদস্য। জানাযায়, শনিবার সন্ধ্যায় লালমোহন পৌরসভার ১১নং ওয়ার্ডে উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি মোখলেছ বকশির বাড়ির পাশ দিয়ে রাস্তাটির পাকা করণ কাজ চলছে। রাস্তার পাশে গাছ থাকায় ঠিকাদার গাছ কাটার জন্য সকলকে অনুরোধ করেন। কৃষক লীগের সভাপতি মোখলেছ বকসি জানান, ঠিকাদারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রথমে আমার গাছটি কেটে ফেলি। এরপর পর্যায়ক্রমে সবাইকে গাছ কাটতে বলি। ওই এলাকায় রাস্তার পাশের খাস জমি দখল করে বাড়ির বাউন্ডারি দেন মোঃ আলমগীর নামে এক পুলিশ সদস্য। তার দখল করা খাস জমিতে ৩টি গাছ রাস্তার মধ্যে পড়ে। দুটি গাছ কাটলেও ১টি গাছ কাটতে তিনি রাজি হননি।
এলাকাবাসী ও আমি তাকে অনুরোধ করলে তিনি সকলকে অকর্থ ভাষায় গালি গালাজ করেন। এক পর্যায়ে এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে পড়লে পুলিশ সদস্য আলমগীর ঘরে গিয়ে ৯৯৯ ফোন করে লালমোহন থানা পুলিশের সহযোগিতা চান। তার ফোন পেয়ে লালমোহন থানা থেকে এ,এস,আই দীপক সঙ্গীয় ফোস সহ ঘটনাস্থলে যায়। এ এসআই আমার পরিচিত হওয়ায়, আমি সকলের সামনে তার হাত ধরে বাসায় চা খাওয়ার জন্য বলি। এতে হয়তো এএসআই দীপক আমার উপড়ে ক্ষুব্ধ হন। আমি উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আমার সুনাম নষ্ট করার জন্য একটি কু-চক্রী মহল আমার বিরুদ্ধে সংবাদ কর্মীদের ভূল বুঝিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে।
এব‍্যাপারে পুলিশ সদস্য মোঃ আলমগীর বলেন, আমার বাসার সামনে রাস্তার পাশে ৩টি গাছের ২টি গাছ কেটেছি। ঠিকাদার বলছে বাকি ১টি গাছ প্রয়োজন হলে কাটব। কিন্তু মোখলেস বকসী এলাকার লোকজন নিয়ে বলল বাকি গাছটি এখনই কাটতে হবে। এ নিয়ে সমস‍্যার সৃষ্টি হয়। আমি এলাকায় সকলের সাথে নিয়ে এর উপযুক্ত সমাধান চাচ্ছি।
লালমোহন থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ এনায়েত হোসেন জানান, এব্যাপারে কোন পক্ষ থানায় অভিযোগ করেনি।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!