1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
থানার ব্যারাকে পুলিশ কর্মকর্তার ঝুলন্ত লাশ - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০১:১৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লালমোহনে প্রতিপক্ষের হামলায় গর্ভবতী নারীসহ আহত ৩ পাথরঘাটায় “একটু পাশে দাঁড়াই ” সংগঠন এর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ লালমোহনে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার পেল নগদ অর্থ ও ঢেউটিন লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়ন বাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মো: জসিম উদ্দিন হাওলাদার মনপুরায় ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এমপি জ্যাকবের ৩ লক্ষ টাকা অনুদান বিতরন লালমোহনে মনিরুজ্জামান মনিরের ৫ হাজার শাড়ি লুঙ্গি পেল অসহায় পরিবার লালমোহনে বজ্রপাতে নিহতের পরিবারকে কোস্ট ফাউন্ডেশনের অনুদান হতদরিদ্রদের সরকারি টিসিবির মাল মুদিদোকানে চুরি করে বিক্রি লালমোহনে গরীব ও দুঃস্থরা পেল মনিরুজ্জামান মনিরের ঈদ উপহার লালমোহনে অসহায়-দু:স্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ

থানার ব্যারাকে পুলিশ কর্মকর্তার ঝুলন্ত লাশ

দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪ ডেস্ক :
  • প্রকাশিত : বুধবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ১৩৩ বার পঠিত
Spread the love

ময়মনসিংহের ভালুকা মডেল থানা ব্যারাকের দোতলা থেকে হুমায়ুন কবির (৪০) নামে এক এসআইয়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সিলিং ফ্যান থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।নিহত এসআই হুমায়ুন কবির টাঙ্গাইল জেলার মধুপূর উপজেলার মালউড়ি গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঘটনার সময় হুমায়ুন কবিরের অন্যান্য সহকর্মীরা ডিউটিতে ছিলেন। তিনি রুমের দরজা-জানালা খোলা অবস্থায় নিজের বিছানার ওপরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে রশি বেঁধে গলায় ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

ঘটনার কিছুক্ষণ পর তার অপর এক সহকর্মী গিয়ে দেখেন তিনি গলায় ফাঁসি দিয়ে ঝুলছেন। সহকর্মীর চিৎকারে থানার ভিতরে অবস্থানরত অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা দোতলায় ছুটে যান।

পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যুর খবর পেয়ে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত ডিআইজি আবিদা সুলতানা, পুলিশ সুপার মাসুম আহম্মেদ ভূঞা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) আবু রায়হান ও ডিবির ওসি শফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

হুমায়ুন কবির ২০০০ সালে কনস্টেবল পদে পুলিশে যোগদান করেন। এরপর পদোন্নতি পেয়ে এএসআই হয়ে ভালুকা মডেল থানায় চাকরি করেন।

কিছুদিন চাকরির পর অন্যত্র বদলি হয়ে যান। পরবর্তীতে আবারো পদোন্নতি পেয়ে ছয় মাস আগে ভালুকা মডেল থানায় যোগদান করেন।

অপর এক সূত্র জানায়, হুমায়ুন আত্মহত্যার আগে তার স্ত্রীর সঙ্গে সবশেষ মোবাইলে কথা বলেছেন। পারিবারিক কলহের কারণে তিনি আত্মহত্যা করতে পারেন বলে ধারণা পুলিশের।

ময়মনসিংহ রেঞ্জের পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি আবিদা সুলতানা বলেন, হুমায়ুন কবির দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। সবশেষ ২৮ দিনের ছুটি শেষে গত মাসের ৭ তারিখে তিনি এই থানায় যোগদান করেন।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি ফাঁসিতে আত্মহত্যা করেছেন। আত্মহত্যার কারণ এখনো জানা যায়নি। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!