1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
লালমোহনে পিতৃভিটা উদ্ধারে দ্বারেদ্বারে ঘুরছে সন্তানরা - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০১:২২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লালমোহনে প্রতিপক্ষের হামলায় গর্ভবতী নারীসহ আহত ৩ পাথরঘাটায় “একটু পাশে দাঁড়াই ” সংগঠন এর পক্ষ থেকে ঈদ সামগ্রী বিতরণ লালমোহনে কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার পেল নগদ অর্থ ও ঢেউটিন লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়ন বাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মো: জসিম উদ্দিন হাওলাদার মনপুরায় ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এমপি জ্যাকবের ৩ লক্ষ টাকা অনুদান বিতরন লালমোহনে মনিরুজ্জামান মনিরের ৫ হাজার শাড়ি লুঙ্গি পেল অসহায় পরিবার লালমোহনে বজ্রপাতে নিহতের পরিবারকে কোস্ট ফাউন্ডেশনের অনুদান হতদরিদ্রদের সরকারি টিসিবির মাল মুদিদোকানে চুরি করে বিক্রি লালমোহনে গরীব ও দুঃস্থরা পেল মনিরুজ্জামান মনিরের ঈদ উপহার লালমোহনে অসহায়-দু:স্থদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ

লালমোহনে পিতৃভিটা উদ্ধারে দ্বারেদ্বারে ঘুরছে সন্তানরা

জাহিদ দুলাল, লালমোহন
  • প্রকাশিত : রবিবার, ৭ মে, ২০২৩
  • ৫৩ বার পঠিত
Spread the love

ভোলার লালমোহনে প্রয়াত বাবার বসতভিটা দখলের অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। সেই ভিটা উদ্ধারে স্থানীয় শালিসদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে সন্তানরা। ঘটনাটি উপজেলার ধলীগৌরনগর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড চরমোল্লাজী গ্রামের জয়নাল আবেদিন মিস্ত্রি বাড়ির।

ওই গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদিনের রেখে যাওয়া বসতভিটা জবরদখল করার অভিযোগ উঠেছে একই বাড়ির  জালাল আহমদের ছেলে জামাল উদ্দিন গংদের বিরুদ্ধে। এমন অভিযোগ করে মৃত জয়নাল আবেদিনের ছেলে মো. ইউসুফ মিয়া বলেন, এ ভিটাতেই থাকতেন তার বাবা। ২০০০ সালে বাবার মৃত্যু হয়।

তবে আমরা কাজের তাগিদে  চট্রগামসহ বিভিন্ন স্থানে থাকার সুবাদে বাবার ভিটা খালি থাকে। এ সুযোগে একই বাড়ির মৃত জালাল আহমেদের ছেলেরা ওই ভিটা দখল করে ঘর উত্তোলন করে। বিষয়টি স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিদের জানালে একাধিকবার শালিস বৈঠক হয়। তবে প্রতিপক্ষরা কাগজপত্র না দেখিয়ে বারবারই সময় নিয়ে কালক্ষেপণ করছে।

ইউসুফ আরও বলেন, প্রায় ৩ মাস আগে এ বিষয়ে লালমোহন থানায় অভিযোগ করি। সেখানেও তারা কাগজপত্র দেখাতে না পেরে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সময় নেয়। কিন্তু বৃহস্পতিবার তারা আর ফয়সালায় বসেনি। এদিকে বাবার ভিটাও তাদের দখলে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মৃত জালাল আহমদের ছেলে জামাল বলেন, ইউসুফের পিতা জয়নাল আবেদিন মৃত্যুর আগে এ জমি অন্যের কাছে বিক্রি করে গেছেন।

আমরা ওই ক্রেতার কাছ থেকে ক্রয় করেছি। যার দলিলাদিও রয়েছে। লালমোহন থানার এএসআই মোশারফ জানান, জমি সংক্রান্ত বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় পর্যায়ে শালিসি চলমান রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!