1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
দুই মাস ধরে নিখোঁজ লালমোহনের এক কলেজ ছাত্র মোবাইল ফোন উদ্ধার হলেও হদিস নেই ছাত্রের - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাথরঘাটায় ৪২ মণ সামুদ্রিক মাছসহ আটক -১৩ কোস্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঘুর্ণিঝড় রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মধ্যে নগদ সহায়তা প্রদান শেখ হাসিনার সরকার দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন- এমপি শাওন কাঠালিয়ায় সাপের কামড়ে নারীর মৃত্যু বাউফলে ছাগল চোর আটক, এলাকাবাসীর গনধোলাই ‘লঞ্চে সন্তান প্রসব, মা-শিশুর আজীবন ভাড়া ফ্রি’ ভোলা জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ মাহবুব-উল-আলম- শ্রেষ্ঠ থানা লালমোহন লালমোহনে অটোরিকশার চাকায় পৃষ্ট হয়ে ৫ বছরের শিশু নিহত মনপুরায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত মনপুরায় ঘূর্ণীঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এমপি জ্যাকবের নগদ অর্থ বিতরন

দুই মাস ধরে নিখোঁজ লালমোহনের এক কলেজ ছাত্র মোবাইল ফোন উদ্ধার হলেও হদিস নেই ছাত্রের

জসিম জনি
  • প্রকাশিত : বুধবার, ৩১ মে, ২০২৩
  • ১৪৩ বার পঠিত
Spread the love

দুই মাস ধরে নিখোঁজ ভোলার লালমোহনের এক কলেজ ছাত্র। ভোলা সরকারি কলেজ ছাত্রাবাস থেকে গত ২৯ মার্চ বের হয়ে যায় আসাদুর রহমান। এরপর তার আর কোন হদিস পাচ্ছে না পরিবার। এ ব্যাপারে ভোলা সদর থানায় সাধারণ ডায়েরী করা হলেও গত দুই মাসেও কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না ওই ছাত্রের।

আসাদের বাড়ি লালমোহন চরভূতা ইউনিয়নের লেঙ্গুটিয়া গ্রামে। বাবা মো. ইউসুফ হারুনের দুই সন্তানের ছোট আসাদ। ভোলা সরকারি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে ওই কলেজেরই শাহবাজ খান ছাত্রাবাস ১১০ নং কক্ষে থাকতো। ছাত্রাবাসে থাকা অবস্থায় ২৯ মার্চ বিকেলে কাউকে কিছু না বলে নিজের পড়নের কাপড় চোপড় নিয়ে বের হয়ে যায়। পরে তার খোঁজ না পাওয়ায় ছাত্রাবাসের তত্ত¡াবধায়ক মো. রিয়াজ উদ্দিনসহ খোঁজাখুজি করা হয়। তবুও কোথাও পাওয়া যায়নি। পরিবারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে ও আত্মীয় স্বজনের বাসায়ও খোঁজ করা হয়েছে। কোথাও আসাদকে পাওয়া যায়নি।

আসাদের বাবা ইউসুফ হারুন জানান, ভোলা থানায় সাধারণ ডায়েরী করার পর তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি ট্রাকিং করে চট্টগ্রামের কুলশী থানা এলাকায় এক গার্মেন্টস কর্মীর কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। ওই ব্যক্তির কাছে মোবাইল ফোনটি আসাদ বিক্রি করেছে বলে তিনি জানায়। আসাদের বাবা চট্টগ্রাম গিয়ে কুলশি থানা পুলিশের মাধ্যমে ওই ব্যক্তির কাছ থেকে মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করে। তবে আসাদের কোন সন্ধান দিতে পারেনি তিনি। পুলিশের পক্ষ থেকেও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হলেও ওই সূত্র ধরে আসাদের কোন খোঁজ নিতে পারেনি।
এবিষয়ে জিডির তদন্ত কর্মকর্তা ভোলা থানার এসআই আলী আকবর জানান, অভিযোগকারী সাইবার ক্রাইমে অভিযোগটি নিয়েছে। সাইবার ক্রাইমে এ বিষয়ে কোন তথ্য পাচ্ছে না।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!