1. admin@dipkanthonews24.com : admin :
লালমোহনে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে জায়গা দখলে দিলো শালিসরা - দ্বীপকন্ঠ নিউজ ২৪
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পাথরঘাটায় ৪২ মণ সামুদ্রিক মাছসহ আটক -১৩ কোস্ট ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঘুর্ণিঝড় রিমেলে ক্ষতিগ্রস্ত ২৫০ পরিবারের মধ্যে নগদ সহায়তা প্রদান শেখ হাসিনার সরকার দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন- এমপি শাওন কাঠালিয়ায় সাপের কামড়ে নারীর মৃত্যু বাউফলে ছাগল চোর আটক, এলাকাবাসীর গনধোলাই ‘লঞ্চে সন্তান প্রসব, মা-শিশুর আজীবন ভাড়া ফ্রি’ ভোলা জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ মাহবুব-উল-আলম- শ্রেষ্ঠ থানা লালমোহন লালমোহনে অটোরিকশার চাকায় পৃষ্ট হয়ে ৫ বছরের শিশু নিহত মনপুরায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্ট ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত মনপুরায় ঘূর্ণীঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে এমপি জ্যাকবের নগদ অর্থ বিতরন

লালমোহনে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে জায়গা দখলে দিলো শালিসরা

দ্বীপকন্ঠ নিউজ ডেস্ক:
  • প্রকাশিত : সোমবার, ৬ মে, ২০২৪
  • ৩৬ বার পঠিত
Spread the love
দ্বীপকন্ঠ নিউজ ডেস্কঃ
ভোলার লালমোহনে আদলতের আদেশ অমান্য করে একপক্ষকে জমি দখল দেয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় শালিসদের বিরুদ্ধে।
গত রবিবার (২৮ এপ্রিল) উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নোর ৭নং ওয়ার্ড পশ্চিম চরউমেদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, পশ্চিম চরউমেদ মৌজার এসএ ১৮০ নং খতিয়ানের এসএ ৩৭১৯ দাগসহ আরো কয়েকটি দাগ ও খতিয়ানের জমি নিয়ে বিরোধ থাকায় স্থানীয় আবুল খায়ের লালু কে বিবাদী করে গত ২০২৩ সালের ৭ সেপ্টেম্বর মোকাম বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ আদালত লালমোহনে মামলা দায়ের করেন একই গ্রামের বাসিন্দা মো. নুরনবীর স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস। দেওয়ানি মোকদ্দমা নং-১৯৭/২০২৩ইং।
এদিকে পশ্চিম চরউমেদ মৌজার এসএ ১৮০ নং খতিয়ানের এসএ ৩৭১৯ দাগসহ আরো কয়েকটি দাগ ও খতিয়ানের জমি নিয়ে বিরোধ থাকায় গত বছরের ২ নভেম্বর মোকাম লালমোহন সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করেন স্থানীয় সন্তোষ কুমার ও সুশেন বিশ্বাস গং। দেওয়ানি মোকদ্দমা নং-১২৭/২০২৩ ইং। পরে বাদি পক্ষের সুশেন বিশ্বাস নামে একজেনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধীয় ভূমিতে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে আগামী ৯ মে ২০২৪ পর্যন্ত উভয় পক্ষকে স্থিতিবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেন আদালত।
তবে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে শালিস বৈঠকের নামে মামলার বিবাদী আবুল খায়ের লালু কে জায়গা দখল দেয়া হয়েছে বলে শালিসদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন স্থানীয় মাইনুদ্দিন। তিনি বলেন, রমেশ মাল বাড়িতে আমার অংশ রয়েছে। পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাজান বেপারি, জাহাঙ্গীর পাটোয়ারীসহ স্থানীয় আরও কয়েকজন মিলে শালিসি করেছেন। শালিস বৈঠকেও আমার অংশ পাওনা হয়েছি, তবে আমাকে সেই অংশ বুঝিয়ে না দিয়ে আমার ভিটেতে আবুল খায়ের লালু কে উঠিয়ে দিয়েছে শালিসরা।
একই অভিযোগ করেন আবুল খায়ের লালুর বিরুদ্ধে করা মামলার বাদিনীর স্বামী মো. নুরনবী। তিনি বলেন, এ জমি নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে আমাদের মামলা চলমান রয়েছে। এছাড়াও অপর আরেকজনের মামলায় অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এরপরও কীভাবে শালিস বৈঠক হয় এবং বিবাদী আবুল খায়ের লালুকে বিরোধীয় জমি দখলে দিয়েছেন স্থানীয় শালিসগণ, তা বোধগম্য নয়।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রমেশ মাল বাড়িতে একটি অর্ধনির্মিত দোচালা টিনসেট ঘরে স্ত্রীসহ উঠেছেন আবুল খায়ের লালু। জানতে চাইলে আবুল খায়ের লালু বলেন, পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাজান বেপারিসহ শালিসগণ আমাকে এ ঘরে থাকতে বলেছেন, তাই আমি ঘরে উঠেছি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় শালিস মো. জাহাঙ্গীর পাটোয়ারী বলেন, আদালতের নির্দেশ সম্পর্কে আমরা অবগত ছিলাম না। এছাড়াও আবুল খায়ের লালু কে ঘরে উঠানোর বিষয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাজান বেপারি ভালো জানেন।
এদিকে এ বিষয়ে জানতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাজান বেপারির মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।
 লালমোহন থানার ওসি (তদন্ত) মো. এনায়েত হোসেন জানান,এধরণের কোন বিষয় আমার জানা নেই।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো পড়ুন
error: Content is protected !!